বুধবার, ২৩ মে, ২০১২

ভগবান বনাম শয়তান

একজন ইঞ্জিনিয়ার অফিসে যাওয়ার সময় হঠাৎ করে হার্ট এ্যাটাক হয়ে মরে গেলো। মরার পর সে দেখলো যে একটা বিশাল গেটের সামনে দাঁড়িয়ে আছে, যেটার ওপরে লেখা আছে "স্বর্গদ্বার"। ঠিক সেই সময় চিত্রগুপ্ত এসে হাজির হলেন আর ইঞ্জিনিয়ারকে জিজ্ঞেস করলেন, "হ্যাঁ ভাই, পৃথিবীতে তুমি কি করতে?" উত্তর শুনেই চিত্রগুপ্ত মাথা নেড়ে বললেন, "কোথাও একটা ভুল হয়েছে। তুমি স্বর্গে নয় নরকে যাও।" এই বলেই ইঞ্জিনিয়ারকে নরকে পাঠিয়ে দিলেন।
নরকে থাকতে গিয়ে ইঞ্জিনিয়ার দেখলো যে ওখানে প্রচুর সমস্যা। এসি কাজ করে না, টয়লেটে জল ঠিকমতো আসে না, স্নান করতে গিয়ে দেখা যায় যে হঠাৎ জল শেষ, যখন তখন শর্টসার্কিট হয়ে লোডশেডিং হয়ে যায় ইত্যাদি ইত্যাদি।
সে বিরক্ত হয়ে শয়তানকে বললো, "আপনারা এখানে থাকেন কিভাবে। আমাকে কয়েকটা লোক আর কিছু যন্ত্রপাতি দিন তো। দেখছি কি করা যায়।"
কিছুদিনের মধ্যেই সবকিছু একদম নতুন, ঝাঁ চকচকে হয়ে উঠলো।
হঠাৎ শয়তানের কাছে ভগবানের একটা ফোন এলো। ভগবান জিজ্ঞেস করলেন, "কি ভায়া, কেমন আছো? তারপর সব ঠিকঠাক চলছে তো?"
শয়তান বললো, "হ্যাঁ হ্যাঁ। অনেকদিন পর সবকিছু একদম ফাস্ট কেলাস চলছে। এই গরমে তাই বেঁচে গেছি।"
ভগবান, একটু অবাক হয়ে, "ঠিকঠাক? মানে? কিভাবে হলো?"
শয়তান, একটু মুচকি হেসে, "হুঁ হুঁ বাবা। বারবার শুধু আমাকে ডাউন দেবে ভেবেছো? ঐ ইঞ্জিনিয়ারের জন্য সব একদম ঠিকঠাক চলছে।"
ভগবান, "ইঞ্জিনিয়ার? ইঞ্জিনিয়ারের তো নরকে যাওয়ার কথা নয়! ওকে এক্ষুণি স্বর্গে পাঠিয়ে দাও। না হলে ...।"
শয়তান, "নাহলে কি?"
ভগবান, "নাহলে আমি কেস করে দেবো।"
শয়তান, অট্টহাসি হেসে, "কেস করবে? করো, করো! কোন আপত্তি নেই। শুধু একটা কথা মনে রেখো। তুমি উকিল পাবে কোত্থেকে, সেটা ভেবে দেখেছো? সবকটা উকিল তো আমার এখানে!"